আওয়ামী লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা:স্ত্রীসহ গুলিবিদ্ধ ২

sd.jpg

প্রতি‌দিন ডেস্ক:বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার তারাছা ইউনিয়নের তালুকদার পাড়ায় সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুই জন। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল রোয়াংছড়ির তারাছা ইউনিয়নের তালুকদার পাড়ায় হামলা চালালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত উথোয়াই নু মারমা (৪২)। তারাছা ইউনিয়ন আ’লীগের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য। এ ঘটনায় তার স্ত্রী উনুচিং মারমা (৩৬) ও অপর এক প্রতিবেশী গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন।
তালুকদারপাড়ার বাসিন্দা ও তারাছা ইউপির সাবেক সদস্য চাউহ্লাউ মারমা বলেন, ঊরুতে গুলিবিদ্ধ ক্রাথুইচিং মারমা তাঁর ছোট বোন। এর আগে তাঁর ছোট ভাই মংমং থোয়াই মারমাকেও সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করেছে। তাঁরা তাঁর গুলিবিদ্ধ বোনকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তির জন্য পাঠিয়ে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে তারাছা ইউপির চেয়ারম্যান উথোয়াইচিং মারমা বলেন, অস্ত্রধারীরা উথোয়াইনু মারমাকে গুলি করে দ্রুত পালিয়ে গেছে। হামলাকারীদের পরিচয় জানা যায়নি।
এদিকে জেলা পুলিশ সুপার জেরিন আখতার জানিয়েছেন, একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী উথোয়াইনু মারমার বাসা ঘেরাও করে গুলি করলে সে ঘটনাস্থলে নিহত হন। তবে কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। সেখানে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা গেছে বলে এসপি জানিয়েছেন।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সন্ধ্যায় উথোয়াইনু মারমাসহ বেশ কয়েকজন তার বাসায় খাওয়া-দাওয়া করার সময় সেখানে সশস্ত্র সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালায়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে উথোয়ানু নিহত ও তার স্ত্রী ও এক প্রতিবেশী আহত হন।
স্থানীয় পাড়ার লোকজন জানিয়েছেন, জনসংহতি সমিতির সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। তবে এখনও এ ঘটনায় জনসংহতি সমিতির কোনো নেতাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। দীর্ঘদিন থেকে বান্দরবানে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে জনসংহতি সমিতির সাথে স্থানীয় আ’লীগের দ্ব›দ্ব চলে আসছে।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top