সীমান্ত হত্যা বন্ধে একমত বিজিবি-বিএসএফ

BDR-BSF-7777.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক:অবৈধ অনুপ্রবেশ, মাদক ও চোরাচালানরোধ এবং সীমান্ত হত্যা বন্ধে ঐক্যমতে কাজ করবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ)। সীমান্তে অমিমাংসিত এসব সমস্যা সমাধানে দুই বাহিনী পারস্পারিক সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করার প্রতিশ্র“তি দিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেটে চারদিনের সীমান্ত সম্মেলন শেষে বিজিবি ও বিএসএফ’র পক্ষ থেকে এই প্রতিশ্র“তির কথা গণমাধ্যমকে জানানো হয়। সোমবার (৩০ মে) শুরু হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার এই সম্মেলন শেষ হয়।
সম্মেলনে বিজিবির ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন রিজিয়ন কমান্ডার (সরাইল, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার রিজিয়ন এবং ময়মনসিংহ সেক্টর) তানভীর গনি চৌধুরী। অপরদিকে বিএসএফ’র ১৬ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন আইজি (মেঘালয়, মিজোরাম ও কাচার এবং ত্রিপুরা ফ্রন্টিয়ার) সুমিত শরণ।
সম্মেলনে বিজিবি কর্মকর্তারা সীমান্ত হত্যা, বাংলাদেশি নাগরিকদের ওপর বিএসএফ ও ভারতীয় নাগরিকদের হামলা, মাদক পাচার, ভারতীয় নাগরিকদের অনুপ্রবেশ, নারী ও শিশু পাচার, ভারত দিয়ে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মায়ানমারের নাগরিকদের অনুপ্রবেশ এবং সীমান্তের ১৫০ গজের মধ্যে বিএসএফ ও ভারতীয় নাগরিক কর্তৃক অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ বন্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে বিএসএফকে অনুরোধ জানানো হয়।
এছাড়া কসবা রেলওয়ে লিংক প্রজেক্টের কাজ ফের শুরু ও যৌথ নদী কমিশন কর্তৃক অনুমোদিত বাংলাদেশ অংশের নদী শাসন সংক্রান্ত কাজে বিএসএফ’র বাধা অপসারণসহ বিভিন্ন সমস্যার কথা বিজিবি’র পক্ষ থেকে তুলে ধরা হয়।
বিজিবি’র প্রস্তাবে সীমান্ত হত্যা ও মাদক পাচার বন্ধে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সম্মিলিত জোরালো পদক্ষেপ গ্রহণে একমত হয় বিএসএফ। এছাড়া ভারতীয় নাগরিকদের অনুপ্রবেশ বন্ধে উভয় বাহিনী নিজ নিজ দেশের আইন অনুযায়ী কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।
বিএসএফ’র পক্ষ থেকেও সম্মেলনে কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরা হয়। তন্মধ্যে বাংলাদেশি নাগরিকদের অনুপ্রবেশ এবং বিএসএফ ও ভারতীয় নাগরিকদের ওপর হামলা, মাদক, গরু ও বিভিন্ন ধরনের চোরাচালান বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ।
এছাড়া সীমান্তের ১৫০ গজের মধ্যে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ ও বিভিন্ন সীমান্ত স্থাপনা নির্মাণ ও উন্নয়নমূলক কাজের অগ্রগতি ত্বরান্বিত করার বিষয়টিও তুলে ধরে বিএসএফ।
জবাবে বিজিবি সীমান্ত হত্যা বন্ধে ভারতে কোনো বাংলাদেশি অনুপ্রবেশ করলে তার বিরুদ্ধে বিদ্যমান সীমান্ত আইন ও নিজ নিজ দেশের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানায়।
এছাড়া সীমান্তের ১৫০ গজের মধ্যে কাঁটাতারের বেড়া বা স্থাপনা নির্মাণের ক্ষেত্রে যথাযথ প্রক্রিয়া, বিদ্যমান বিধিবিধান ও বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত নকশা অনুসরণ করে প্রস্তাবনা প্রেরণের ওপর বিজিবি গুরুত্বারোপ করে।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!