চিতলমারীতে এক পুকুরে ৩৩ মুর্তি দিয়ে হবে সরস্বতী পূজা

CHITALMARI-NEWS-04.02.2022-1-2.jpg

চিতলমারী প্রতিনিধি : বাগেরহাটের চিতলমারীর চরডাকাতিয়া বিদ্যা পুকুরে বিভিন্ন দেব-দেবীর ৩৩ টি মুর্তি দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে বিদ্যার দেবী সরস্বতী পুজা।

প্রতিবছরের ন্যায় এ বছর মায়ের আচল পূজা কমিটির উদ্যোগে ব্যতিক্রমধর্মী এ বৃহত্তম পুজার আয়োজন করা হয়েছে।

তবে এ বছর করোনা পরিস্থিতির কারনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বল্প পরিসরে হবে বাণী অর্চণা। পূজায় ভক্ত-দর্শনার্থীরা যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশগ্রহণ করতে পারে তার জন্য কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

মায়ের আচল পূজা কমিটির সাথে সংশ্লিষ্টরা জানান, এ ২০১৬ সাল থেকে এলাকার ৪২ জন তরুণ যৌথ উদ্যোগের মাধ্যমে পুজাটি পরিচালনা করে আসছেন। ইতোমধ্যে এই বিদ্যাপুুকুরের সরস্বতী পুজার সুনাম আশ-পাশের জেলা-উপজেলা ছড়িয়ে পড়েছে।

পুজার দিনি হাজার হাজার দর্শনার্থী এ পুজা দেখতে আসেন। এ পুজার মূল আকর্ষণ হলো কমিটির সদস্যদের স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে পুকুরের মধ্যে বেদী তৈরি করে বিভিন্ন দেব-দেবীর ৩৩ টি মুর্তি দিয়ে পূজা করা।

এ সকল মুর্তির মধ্যে রয়েছে, বিদ্যার দেবী সরস্বতী, রাধা-কৃষ্ণ, শিব, লক্ষ্মী-নারয়ন, কার্তিক, রাম-সীতা অন্যতম। পূজার ২ মাস পূর্ব থেকে সদস্যদের স্বেচ্ছাশ্রমের বিনিময়ে চলে মুর্তি তৈরি কাজ।

মুর্তির কাঠামো তৈরি, রং করাসহ যাবতীয় কাজই নিজেরা করেন। পূজা উপলক্ষে ৩ দিন ধরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকলেও এ বছর করোনার নিষেধাজ্ঞার কারনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হবে বাণী অর্চণা।

এ ব্যাপারে মায়ের আচল পূজা কমিটির সভাপতি মিলন কৃষ্ণ মণ্ডল বলেন, বিদ্যাপুকুরের সরস্বতী পূজা এলাকার একটি সার্বজনিন উৎসবে পরিনত হয়েছে। এলকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় এ পূজা দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চালের অন্যতম বৃহত্তম একটি পূজা হিসেবে পরিগনিত হয়েছে। তিনি সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা দেখতে আসার আহ্বান জানান।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top
error: Content is protected !!