মেসির ৫ গোলে এস্তোনিয়াকে উড়িয়ে দিয়েছে আর্জেন্টিনা

fffffff.jpg

স্পোর্টস ডেস্ক:ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এস্তোনিয়ার চেয়ে ১০৬ ধাপ ওপরে আর্জেন্টিনা। ফিফা প্রীতি ম্যাচে ব্যবধানটা পরিস্কার ফুটে উঠেছে। উত্তর ইউরোপের দেশটিকে দিয়েছে একের পর এক গোল। লিওনেল মেসির জাদুকরি নৈপুণ্যে আর্জেন্টিনা ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে এস্তোনিয়া কে। ৫টি গোলই করেছেন মেসিই!

ফিনালিসিমায় ইতালির বিপক্ষে জেতা একাদশ খেলেনি এই ম্যাচে। ডি মারিয়া- লাওতারো মার্টিনেজরা ছিলেন বিশ্রামে। তাদের ছাড়াই স্পেনের মাঠে আলবিসেলেস্তেরা দুর্বার। বিশেষ করে অধিনায়ক মেসি। তাকে কোনওভাবেই আটকাতে পারেননি এস্তোনিয়ার ডিফেন্ডাররা।
একচেটিয়া প্রাধান্য বিস্তার করে খেলেছে আর্জেন্টিনা। বল দখলে দাপট দেখিয়ে ম্যাচের প্রথমার্ধে এসেছে দুটি গোল। ম্যাচ ঘড়ির ৮ মিনিটে আর্জেন্টিনা প্রথম গোল করে এগিয়ে যায়। মাতভেই ইগোনেন ফাউল করেন পেজ্জেল্লাকে। পেনাল্টি থেকে অধিনায়ক মেসি বাঁ পায়ের শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন।
দ্বিতীয় গোল পেতে অনেক সময় পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে স্কালোনির দলকে। ১১ মিনিটে মেসির শট ব্লক হয়। চার মিনিট পর অ্যালিস্টারের শট পোস্টের ডান দিক দিয়ে বেরিয়ে যায়।

২৫ মিনিটে হুলিয়ান আলাভেজের ডান পায়ের নেওয়া শট গোলরক্ষক প্রতিহত করেন। ৩৮ মিনিটে মেসি বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৪০ ও ৪৪ মিনিটে আরও দুটি গোলের প্রচেষ্টা থেকে ব্যবধান বাড়াতে পারেনি আর্জেন্টিনা।
তবে ৪৫ মিনিটে সমর্থকদের মুখে আবারও হাসি ফোটান মেসি নিজেই। পাপু গোমেজের পাসে ডান দিক দিয়ে বক্সে ঢুকে বা পায়ে স্কোর লাইন ২-০ করেন।

ড্রেসিং রুম থেকে ফিরে আক্রমণে আরও তেজ বাড়ে আর্জেন্টিনার।৪৭ মিনিটে মেসি হ্যাট্রটিক পূর্ণ করেন। ডান প্রান্ত থেকে মলিনার ক্রসে এই তারকা প্লেসিং করে বল জড়িয়ে দেন জালে।

৭১ মিনিটে মেসি চতুর্থ গোল পান। বক্সের ভিতরে থেকে ডান পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন। ৭৬ মিনিটে মেসি আবারও পোস্ট কাঁপান। বাঁ পায়ের শটে প্রতিপক্ষ কে বোকা বানান ৩৪ বছর বয়সী তারকা।

ম্যাচের শেষ পর্যন্ত দাপট দেখিয়ে বড় ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছে আর্জেন্টিনা। এস্তোনিয়া প্রতি আক্রমণ বারকয়েক গোল শোধে চেষ্টা করলেও সফল হতে পারেনি।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top
error: Content is protected !!