বাঘের সঙ্গে লড়াই করে হায়াত বাড়ালেন আবু হায়াত!

314864_kl.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক
সহযোগী দুই জেলেকে নিয়ে কিছুক্ষণ ধরে বাঘের সঙ্গে লড়াই করে জীবন নিয়ে লোকালয়ে ফিরেছে বনজীবী আবু হায়াত (৫৫)। গত রোববার ভোররাতে সুন্দরবনের পশ্চিম বনবিভাগ সাতক্ষীরা রেঞ্জের দারগাং এলাকায় আলোচিত এ ঘটনাটি ঘটে। গতকাল সকালে আহত জেলেকে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আবু হায়াত শ্যামনগর উপজেলার সুন্দরবন সংলগ্ন টেংরাখালী গ্রামের মৃত আহসান ঢালীর ছেলে।
আহত আবু হায়াত জানান, কৈখালী স্টেশন অফিস থেকে পাশ নিয়ে গত রোববার সন্ধ্যায় দুই সহযোগীকে সঙ্গে নিয়ে সে সুন্দরবনে যায়। ভোর রাতের দিকে জাল থেকে মাছ ছাড়ানোর সময় আকস্মিকভাবে বনের মধ্য থেকে বাঘ এসে তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। এ সময় অনতিদূরে থাকা দুই সহযোগী জেলে নুর ইসলাম ও বাবলু হাতে থাকা লাঠি নিয়ে বাঘের ওপর চড়াও হয়। মরণপণ লড়াইয়ের একপর্যায়ে তিনজনের বাধার মুখে তাকে ছেড়ে দিয়ে বাঘটি বনের মধ্যে চলে যায়।

আহত বনজীবীর সহযোগী নুর ইসলাম জানায়, প্রায় ৩-৪ মিনিট ধরে তারা বাঘটির সঙ্গে লড়াই করেন। তিনজনের হামলার মুখে বাঘটি শিকার ছেড়ে চলে যাওয়ার পর তারা আবু হায়াতকে নিয়ে লোকালয়ে রওনা হয়। মুখসহ শরীরে বিভিন্ন অংশে বাঘের থাবায় মারাত্মক ক্ষতের সৃষ্টি হওয়ায় পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে তাকে শ্যামনগর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক এম এ হাসান জানান, কৈখালী স্টেশন অফিস থেকে পাশ নিয়ে দুই সহযোগীসহ আহত জেলে সুন্দরবনে মাছ ধরতে যায়। সাহসিকতার পাশাপাশি ভাগ্য সহায় হওয়ায় সে বেঁচে লোকালয়ে ফিরেছে। বন আইনে আহত জেলে হিসেবে তাকে যাবতীয় সুযোগ- সুবিধা দেয়া হবে।
শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক বিপ্লব কুমার দে জানান, আহত জেলেকে হাসপাতালে নেয়ার পর তার চিকিৎসা শুরু হয়েছে। ক্ষতস্থান দিয়ে রক্তক্ষরণ বন্ধ হওয়ায় সে শঙ্কামুক্ত।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top
error: Content is protected !!