খুলনায় দুই খালাতো বোনকে হাত-মুখ বেঁধে গণধর্ষণ

uuuuyds.jpg

নিজস্ব সংবাদদাতা:

খুলনার বটিয়াঘাটায় দুই বোনকে হাত-মুখ বেঁধে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। শনিবার মধ্যরাতে উপজেলার ফুলতলায় নিজ বাড়ীতে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পরে রোববার রাত ৮ টার দিকে তাদের হাসপাতালে নেওয়া হলে ঘটনাটি জনাজানি হয়।

এদের মধ্যে একজন ১৩ বছর বয়সী স্কুল ছাত্রী ও অন্যজন ২৪ বছর বয়সী স্বামী পরিত্যক্তা নারী। স্বামী পরিত্যক্তার একটি ২২ মাস বয়সী সন্তান রয়েছে। সম্পর্কে তারা দুইজন খালাতো বোন।

স্কুল ছাত্রীর মা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শনিবার বিকেলে আমি বোনের বাড়ী ডুমুরিয়াতে গিয়েছিলাম। আমার স্বামী বাগেরহাটে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। এসময়ে বাড়ীতে ওরা দুই বোন ছিলেন।’

‘মধ্যরাতে ৭জন আমাদের বাড়ীতে আসেন। সেখান থেকে কয়েকজন ঘরে গিয়ে দুই বোনের হাত ও মুখ বেঁধে ধর্ষণ করেন। এসময়ে ঘরের বাইরে পাহারায় ছিলেন আরও কয়েকজন।’

‘পরে ভোর রাতে মেয়ে আমাকে ফোনে কান্নাকাটি করে ঘটনা জনায়। অতঃপর বাড়ীতে এসে ছোট মেয়েকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসি।’

‘ঘটনার সময়ে বড় মেয়ের সন্তানের গলায় ছুরি ধরা হয়েছিল। পরে তাকে পানিতে ডুবিয়ে রাখে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে খুলনা শিশু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বড় মেয়ে সেখানে ছেলে নিয়ে আছে। সেও বেশ অসুস্থ। ‘

বটিয়াঘাটা থানার তদন্ত পরিদর্শক মো. জাহিদুর রহমান বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনাটি জানতে পেরে আমি নিজে হাসপাতালে এসেছি। তাদের সাথে কথা বলছি। এঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!