ব্রাজিলে পুলিশের অভিযান, নিহত ১৮

brasil-kp.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক:ব্রাজিলের পুলিশ জানিয়েছে রিও ডি জেনিরো শহরের সবচেয়ে সহিংস বস্তি নিয়ন্ত্রণকারী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযানে ১৮ জন নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে আলেমাও বস্তিতে অভিযান শুরু করে ভারি অস্ত্রে সজ্জিত চার শতাধিক সামরিক পুলিশ।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিহতদের ১৬ জন সন্দেহভাজন অপরাধী। এছাড়া এক পুলিশ কর্মকর্তা এবং এক পথচারীও নিহত হয়েছেন। দিনভর চলা এই অভিযানে বাড়িতে আটকে পড়ে হাজার হাজার মানুষ।

পুলিশ বলছে ওই অভিযানের লক্ষ্য ছিল প্রতিদ্বন্দ্বি বস্তিতে অভিযানের পরিকল্পনাকারী অপরাধীদের শনাক্ত এবং গ্রেফতার করা। এসব অপরাধীদের কেউ কেউ সামরিক পুলিশের মতো পোশাক পরায় তাদের শনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়ে বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ও দিয়া।
অভিযানে চারশ’ পুলিশ কর্মকর্তার পাশাপাশি দশটি বুলেট প্রুফ গাড়ি এবং চারটি হেলিকপ্টার অংশ নেয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের আহতদের গাড়িতে তুলতে দেখা গেছে। ওই সময় পুলিশ তাকিয়ে থেকেছে।

অ্যানাকরিম মানবাধিকার কমিশনের সদস্য গিলবার্তো সান্তিয়াগো লোপেজ জানান, পুলিশ সাহায্য করতে অস্বীকৃতি জানায়। তিনি বলেন, তাদের গ্রেফতার করা পুলিশের লক্ষ্য ছিল না, তাদের লক্ষ্য ছিল হত্যা করা। ফলে আহত হলে পুলিশ মনে করেছে তারা সাহায্য পাওয়ার যোগ্য না।
রিও ডি জেনিরোর বস্তিগুলোতে প্রাণঘাতি অভিযান বিরল কিছু নয়। পুলিশ প্রায়ই এসব এলাকাগুলোতে মাদক পাচারকারী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে থাকে। তবে জনাকীর্ণ বস্তিগুলোতে পুলিশের এই ধরনের অভিযানের কঠোর সমালোচনা করে আসছে ব্রাজিলের মানবাধিকার গ্রুপগুলো। তাদের দাবি, নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর বসবাসের এলাকায় এই ধরনের অভিযানে তাদের জীবন বিপন্ন হয়, অথচ সত্যিকার অর্থে অপরাধী চক্রের ক্ষমতা কমে না।

গত মে মাসে ভিলা ক্রুজেইরো বস্তিতে এক অভিযানে নারী পথচারীসহ ২২ জন নিহত হন। এছাড়া গত বছর শহরের জাকারেজিনহো এলাকায় এক বন্দুকযুদ্ধে এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ অন্তত ২৫ জন নিহত হয়।

সূত্র: বিবিসি

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!