৩ কন্যা শিশুর জন্ম, নাম রাখা হলো স্বপ্ন-পদ্মা-সেতু

fthdeegr.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক:নারায়ণগঞ্জের পর এবার বরিশালে এক মায়ের কোলজুুড়ে তিন কন্যাশিশু ভূমিষ্ট হয়েছে। তাদের নাম রাখা হয়েছে স্বপ্ন-পদ্মা-সেতু। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) সকাল ৯টায় বরিশাল নগরীর ডা. মোখলেছুর রহমান ক্লিনিকে তাদের জন্ম হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সার্জন ডা. মুন্সী মোমিনুল হক। তিনি জানান, আজ ভোরে প্রসূতি নারীকে ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। নরমাল ডেলিভারি সম্ভব হয়নি। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তিন নবজাতক ভূমিষ্ঠ হয়। তারা সকলেই কন্যা। এর মধ্যে দুইজনের ওজন দেড় কেজি করে। একজনের ওজন এক কেজি ৪০০ গ্রাম। নববজাতক তিনজন ও মা সুস্থ রয়েছেন।
জানা গেছে, বাবু সিকদার- নুরুন নাহার দম্পতির প্রথম সন্তান তারা। বাবু ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালান। সুযোগ পেলে তিনি দলের হয়ে কাজ করেন। চারদিকে এখন পদ্মা সেতু উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যাওয়ার প্রস্তুতি। মোটরসাইকেল চালকেরও প্রস্তুতি ছিল সমাবেশে যাওয়ার। কিন্তু তার আগেই প্রসব বেদনা শুরু হয় স্ত্রীর। একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি করালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ভূমিষ্ঠ হয় তিন কন্যা। খুুশিতে নাম রাখেন স্বপ্ন, পদ্মা ও সেতু।
নবজাতকদের বাবা বাবু সিকদার জানান, তার বাড়ি বরিশাল সদর উপজেলার চরামদ্দি ইউনিয়নের বাদলপাড়া গ্রামের নিমতলা স্ট্যান্ড নামক স্থানে। স্ত্রীর নাম নুরুন নাহার।

তিনি বলেন, ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালিয়ে আমার সংসার চলে। তবে এলাকায় আওয়ামী লীগের রাজনীতি করি। গরিব মানুষ তো, দলের জন্য কিছু দিতে পারি না। এজন্য তিন মেয়ে যেহেতু আল্লাহ দিয়েছে, তাদের নাম রাখলাম স্বপ্নের পদ্মা সেতুকে ঘিরে।
তিনি বলেন, আমারও যাওয়ার কথা ছিল উদ্বোধনী সমাবেশে। কিন্তু এখন কীভাবে যাব বুঝতেছি না। মূলত নেত্রীকে ভালোবাসার কারণে আমার মেয়ে তিনজনের নাম রেখেছি স্বপ্ন, পদ্মা, সেতু।

তিন কন্যার জন্ম নিয়ে উভয় পরিবারে খুশির বন্যা বইছে বলে জানান নানি তাসলিমা বেগম ও দাদী মমতাজ বেগম।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (১৭ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় এক দম্পতির ঘর আলো করে একসঙ্গে তিন শিশুর জন্ম হয়। তার মধ্যে একটি ছেলে শিশু, দুটি মেয়ে। মা-বাবা তাদের নাম রাখেন স্বপ্ন, পদ্মা ও সেতু। এর আগে মঙ্গলবার (১৫ জুন) লাইজু আক্তার নামে এক নারী নারায়ণগঞ্জ শহরের হেলথ রিসোর্ট হাসপাতালে একসঙ্গে তিন কন্যাসন্তানের জন্ম দেন।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!