যৌথভাবে আন্দোলন শুরুর আশা বিএনপি-নাগরিক ঐক্যের

hhhhhh.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক:দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারবিরোধী বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিএনপির সঙ্গে নাগরিক ঐক্যের কার্যকর আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি যৌথভাবে আন্দোলনের সূচনা করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। পাশাপাশি মাহমুদুর রহমান মান্নাও আলোচনাকে যৌক্তিক পরিণতির দিকে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৪ মে) বিকালে রাজধানীর শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে নাগরিক ঐক্যের সঙ্গে সংলাপ শেষে সাংবাদিকদের কাছে বিএনপি মহাসচিব ও মাহমুদুর রহমান মান্না এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বিকাল পৌনে ৫টার দিকে বৈঠকটি শুরু হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শেষ হয়।

বৈঠকসূত্র জানায়, মির্জা ফখরুল ও তার সঙ্গে থাকা বিএনপি নেতা আবদুস সালাম ও জহির উদ্দিন স্বপনকে নিয়ে মিলনায়তনে প্রবেশ করেন। শুরুতেই ভূমিকা বক্তব্য দেন মাহমুদুর রহমান মান্না। এরপর পুরো প্রক্রিয়াটি তুলে ধরে স্বাগত বক্তব্য দেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি সেখানে রাজনৈতিক পরিস্থিতি, সর্বদলীয় ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের প্রয়োজনীয়তা, সরকারের পতন, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন, সেই সরকারের সময়সীমা, রাষ্ট্রের সংস্কারসহ নানা বিষয়ে আলোকপাত করেন।

ফখরুলের বক্তব্যের পর মাহমুদুর রহমান মান্নাও দলের ও নিজের পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন। তাদের আলোচনার ফাঁকে বিএনপি নেতা আবদুস সালাম, জহির উদ্দিন স্বপন, নাগরিক ঐক্যের নেতা এস এম আকরাম, ডা. জাহেদ উর রহমানও টুকটাক কথা বলেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, আলোচনায় বিএনপি নেতারা আন্তরিক ছিলেন। প্রাথমিকভাবে সবগুলো দলের সঙ্গে আলোচনা সেরে পরের ধাপে আলোচনা হবে। আলোচনা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে জানিয়ে বৈঠকে মির্জা ফখরুল আগামী দিনে প্রক্রিয়াটিকে আরও অর্থবহ ও বিস্তারিত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। পরের বৈঠকগুলোতে ভবিষ্যৎ রোডম্যাপ ও রূপরেখা নিয়ে আলোচনা হবে। আগামী সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে আলোচনার প্রথম পর্ব শেষ করবে বিএনপি, এমন তথ্য জানিয়েছে সূত্র।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বৈঠক থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সামনে একসঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল ও মান্না।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা একটা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য এই আনুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু করেছি। উদ্দেশ্য একটাই এটাকে একটা যৌক্তিক পরিণতির দিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য। আমাদের আজকে অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে কার্য্করী আলোচনা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি, এই আলোচনার রেশ ধরে বাকি দলগুলোর সঙ্গেও আলোচনা ফলপ্রসূ হবে। আমরা অন্যান্য দলের সঙ্গে কথা বলবো। তাদের সঙ্গে অতি দ্রুত আলাপ-আলোচনা শেষ করে আশা করছি যে, আমরা যৌথভাবে একটা আন্দোলনের সূচনা করতে পারবো। আমরা আশা করি, খুব শিগগিরইএই কাজটা করতে পারবো।’

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!