সাগরে ২৬ নৌকায় ডাকাতি, ডুবিয়ে দেওয়া হলো একটি

sea-kp.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক:পটুয়াখালী সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ২৬ জেলেদের নৌকায় ডাকাতির অভিযোগ উঠেছে। ডাকাতি শেষে ‘এফবি ভাই ভাই’ নামের একটি জেলে নৌকা ডুবিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ওই নৌকায় ৯ জন জেলে ছিল। তাদের উদ্ধার করেছেন সমুদ্রে থাকা অন্য জেলেরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহিপুর মৎস্য আড়তদার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ রাজা।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাত সাড় ৮টার দিকে সোনাচর সংলগ্ন গভীর সমুদ্রে ছয়বাম (৬০ নটিক্যামাইল) এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (২৯ জুলাই) রাতে ‘এফবি মা-বাবার দোয়া’ ট্রলারের মালিক ইউসুফ মিয়া বলেন, আমার নৌকার জেলেরা ডুবিয়ে দেওয়া নৌকার এক জেলেকে উদ্ধার করেছেন। বাকি আট জেলে অন্য একটি নৌকায় আশ্রয় নিয়েছেন।

ডুবিয়ে দেওয়া ‘এফবি ভাই ভাই’ নৌকার জেলে মহিপুরের নিজামপুর গ্রামের ছালাম মিয়া বলেন, ২২ থেকে ২৩ সদস্যের একটি ডাকাতদল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে নৌকার মাছসহ সব মালামাল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। শেষে আমাদের নৌকাটি ডুবিয়ে দেওয়া হয় । এ সময় আশপাশের আরও বেশ কয়েকটি নৌকায় ডাকাতি হয়। পরে ‘এফবি মা বাবার দোয়া’ নামের নৌকার জেলেরা আমাদের উদ্ধার করেন। কিন্তু এর আগে ডাকাতরা ওই নৌকারও সবকিছু ডাকাতি করে নিয়ে যায়।
একই নৌকার মাঝি মো. জিয়া হাওলাদার বলেন, ডাকাতদল আমাদের ট্রলারে উঠেই মারধর শুরু করে। আমাদের ট্রলারের সব মালামাল নিয়ে গেছে। কোনোমতে জীবনটা নিয়ে ঘাটে ফেরত এসেছি।

মহিপুর মৎস্য আড়তদার মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক রাজু আহমেদ রাজা বলেন, গভীর সাগরে ডাকাতদল ফের সক্রীয় হয়ে উঠেছে। ডাকাতি হওয়া নৌকার মধ্যে দুটি রাঙ্গাবালির চরমোন্তাজের, তিনটি মহিপুরের ও বাকিগুলো বিভিন্ন এলাকার।

নিজামপুর কোস্টগার্ডের কন্টিনজেন্ট কমান্ডার বলেন, আমরা কোনও অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মহিপুর থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, এ বিষয়ে আমরা এখন পর্যন্ত কোনও অভিযোগ পাইনি। তাছাড়া এ ঘটনা আমার এরিয়ায় না।

পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ বলেন, বিষয়টি আপনাদের মাধ্যমে শুনেছি। ইতোমধ্যে কোস্টগার্ড এবং নৌপুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে ।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!