ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার রাবি ছাত্রীর হাসপাতালে মৃত্যু

RU-f6def5584ad8116f340fb75491d024cd.jpg

ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধারের পর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৯ জুলাই) রাত সাড়ে ১১টায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

ওই ছাত্রীর নাম রিতা আক্তার (২১)। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ায়। বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর এলাকার ধরমপুরে ধরমপুরে স্বামী রাব্বিসহ বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন। রাব্বি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত গণিত বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তার গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

রাব্বির বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রাত সাড়ে ১১টার দিকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে বাসার জানালার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এরপর নিজে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক হাসিবুল আলম প্রধান বলেন, ‘ঘটনাটি শুনে রাতেই রামেক হাসাপাতালে গিয়েছি। ওই ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে মনে হচ্ছে। তবে আমরা বিভাগের পক্ষ থেকে সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।’

মতিহার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার আলী তুহিন বলেন, ‘লাশ হাসপাতাল মর্গে আছে। তিনি আত্মহত্যা করেছেন কিনা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে জানা যাবে। তার পরিবারের লোকজন এসেছেন। তাদের সঙ্গে কথা বলে এ ঘটনায় মামলা করা হবে। রিতার স্বামী রাব্বিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!