আগুন নিয়ে খেললে পরিণতি হবে ভয়াবহ, বিএনপিকে ওবায়দুল কাদের

oopouiu.jpg

প্রতিদিন ডেস্ক:বিএনপির প্রতি হুঁশিয়ার উচ্চারণ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি শান্তিপূর্ণ কোনও কর্মসূচি দিলে কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে, আমরা কি বসে বসে তামাক খাবো? আগুন নিয়ে খেললে পরিণতি হবে ভয়াবহ।’

মঙ্গলবার (৩১ মে) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে ঢাকা মহানগর ও সহযোগী সংগঠনের এক যৌথ সভায় এ কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।
সরকার বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে দলটির এমন অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বাধার কোনও বিষয় নয়, আমার সামনে নেত্রীকে (শেখ হাসিনা) বলছেন, পঁচাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার। এই কথা শুনলে তরুণদের কি মাথা ঠিক থাকে। সন্ত্রাসীদের কি বাঁধা দেবো না?’
তিনি বলেন, ‘ফখরুল সাহেবারা এসব স্লোগান শিখিয়ে দিয়েছেন। শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিলে ছাত্রলীগ কি চুপ করে বসে থাকবে? নেত্রীকে অপমান করা হচ্ছে। এই অপমান কি আমরা সইতে পারি? এসব কটূক্তির প্রতিবাদ ছাত্রলীগ করেছে।’

ছাত্রদল দিয়ে বিএনপি আন্দোলন শুরু করবে—দলটির এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরাও দেখবো কত ধানে কত চাল। সবকিছুর একটা শেষ আছে। বাড়াবাড়ি ভালো নয়। মির্জা ফখরুলকে বলে দিচ্ছি, আগুন নিয়ে খেলবেন না।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিবেন আমাদের সামনে। আমরা কি মরে গেছি? আমরা কি রাজপথ কাউকে ইজারা দিয়েছি? আওয়ামী লীগ রাজপথ থেকে এসেছে, রাজপথেই আছে।’

আন্দোলনের নামে আগুন সন্ত্রাস করলে জবাব রাজপথেই দেওয়া হবে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সেই জন্য আপনাদের প্রস্তুত হতে, নেত্রীর নির্দেশে এই সভা ডেকেছি।’

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের সময় সেতু ও আশপাশের এলাকার সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানান সেতুমন্ত্রী। পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ২৪ ও ২৫ জুন সারাদেশেই উদযাপন হবে বলে জানান তিনি।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন তারিখ ঘোষণায় বিএনপির বিষ জ্বালা উপচে পড়ছে বলে মন্তব্য করেন কাদের৷ তিনি বলেন, ‘বিএনপি ছাত্রদলকে ব্যবহার করে ক্যাম্পাসকে অশান্ত করার ষড়যন্ত্র করেছে।’ ক্যাম্পাসে কিছু ঘটনা তারা ঘটিয়েছে বলে মন্তব্য তার।

ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক, মুহাম্মদ ফারুক খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মাহবুব-উল আলম হানিফ, হাছান মাহমুদ, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, মির্জা আজম, আফজাল হোসেন, মৃণাল কান্তি দাস,ওয়াসিকা আয়েশা খান, দেলোয়ার হোসেন, সুজিত রায় নন্দী, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!