সাংবাদিক হত্যা, নির্যাতন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় বিএফইউজের উদ্বেগ

image-35845-1640694060.png

সংবাদ বিজ্ঞ‌প্তি//
কুষ্টিয়ায় আলোচিত সাংবাদিক হাসিবুর রহমান রুবেল হত্যা, বরগুনা ও মীরসরাইয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায়, কুষ্টিয়ায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সাংবাদিক গ্রেফতার এবং
কক্সবাজারে ইউএনও কর্তৃক সাংবাদিককে গালমন্দ করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন
বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ওমর ফারুক ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো:
হেদায়েৎ হোসেন মোল্লা।
নিহত সাংবাদিক হাসিবুর রহমান রুবেল কুষ্টিয়া জেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক আমাদের
নতুন সময় পত্রিকার কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি। গত ৩ জুলাই রাত ৯টার দিকে রুবেল তার পত্রিকা অফিসে থাকা
অবস্থায় একটি কল এলে বের হন। এরপর নিখোঁজের ৫ দিন পর ৮ জুলাই তার মরদেহ উদ্ধার হয়।
অপরদিকে সংবাদ প্রচার করার কারণে বরগুনার সাংবাদিক একাত্তর টিভি ও রাইজিংবিডি ডটকমের ইমরান
হোসেন (টিটু), চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলা সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান পলাশ (দৈনিক যুগান্তর ও দৈনিক
আজাদী), এনায়েত হোসেন মিঠু (দৈনিক কালের কন্ঠ ও দৈনিক পূর্বকোণ), মোহাম্মদ ইউসুফ (বাংলা
ট্রিবিউন, দৈনিক ইত্তেফাক, দৈনিক সাঙ্গু), নয়ন কান্তি ধূম (দৈনিক ভোরের পাতা), মো. জাভেদ (দৈনিক
স্বদেশ প্রতিদিন), সেকান্দর হোসাইন (দৈনিক সমকাল) এবং মো. জহিরুল ইসলামকে (আমার সংবাদ) বিবাদী
করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়। এর ফলে প্রকৃত পেশাদার সাংবাদিকরা মামলার আসামি হয়ে
হয়রানির শিকার হচ্ছেন। সংবাদ প্রকাশের কারণে কুষ্টিয়ায়ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় বাংলা
টিভির ভেড়ামারা প্রতিনিধি মো: ওমর ফারুক গ্রেফতার হন।
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের যে ধারাগুলো স্বাধীন সাংবাদিকতার অন্তরায় হয়ে কাজ করছে নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে ওই
ধারাগুলো বাতিল ও সাংবাদিকদের নামে দায়েরকৃত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।
একই সাথে নেতৃবৃন্দ কুষ্টিয়ার সাংবাদিক হাবিবুর রহমান রুবেল হত্যাকা-ে প্রকৃত জড়িতদের গ্রেফতারের সাথে
নেপথ্যে ভূমিকা পালনকারীদের শনাক্ত ও বিচারের মুখোমুখি করাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
গত ২১ জুলাই রাত পৌনে ১০টার দিকে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তার অফিশিয়াল নম্বর
থেকে ফোন করে ঢাকা পোস্টের কক্সবাজার প্রতিনিধি সাইদুল ফরহাদকে অশালীন ভাষায় গালমন্দ করেন। এ
সময় প্রকাশিত সংবাদে বাস্তব পরিস্থিতি তুলে ধরায় ওই প্রতিনিধির ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে অকথ্য গালিগালাজ করেন
ইউএনও মোহাম্মদ কায়সার খসরু। এ ঘটনায়ও নেতৃবৃন্দ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top
error: Content is protected !!