ছাদের রেলিং ভেঙে পড়ল সড়কে, নিহত নারী

image-517654-1644249724.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট: বগুড়ায় ছয়তলা একটি ভবনের ছাদের ইটের রেলিং ভেঙে সড়কে পড়েছে। এ সময় পারুল বেগম (৩৮) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন।

সোমবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে শহরের কাটনারপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ছিলিমপুর মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই শামীম হোসেন এ তথ্য দিয়েছেন।

জনবহুল ও বাণিজ্যিক ওই এলাকায় ঘটনার সময় ফাঁকা থাকায় অল্পের জন্য অনেক প্রাণের রক্ষা মিলেছে। অন্য সময় এ ঘটনা ঘটলে অনেক প্রাণহানি ঘটত বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা মন্তব্য করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, নিহত পারুল বেগম বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বুড়িগঞ্জ ইউনিয়নের বিলহামলা গ্রামের জামাল হোসেনের স্ত্রী। তিনি শহরের সুলতানগঞ্জপাড়ার গোয়ালগাড়ীতে ভাড়া বাসায় পরিবার নিয়ে থাকতেন। শহরের কাটনারপাড়া এলাকায় মাহমুদ হাসান পিন্টু নামে এক ব্যবসায়ীর ছয়তলা ভবনের একটি ফ্ল্যাটে রান্নার কাজ করতেন তিনি।

সোমবার মাগরিবের নামাজের পর জনবহুল ওই এলাকা ফাঁকা ছিল। পারুল বেগম কাজ শেষে কৌটায় সন্তানদের জন্য খাবার নিয়ে ভবন থেকে নামছিলেন। তিনি প্রধান ফটক পেরিয়ে রাস্তায় অটোরিকশার জন্য দাঁড়ানোর সময় হঠাৎ বিকট শব্দে ওই ভবনের ছয়তলার ছাদের রেলিং ভেঙে রাস্তায় পড়ে। এ সময় ওই নারী ইটের নিচে চাপা পড়েন।

প্রতিবেশী মঞ্জু ও আনারুল ইসলাম এবং পাশের ভবনের একটি দোকানের ম্যানেজার রাশেদ সুলতান জুয়েল জানান, সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে ওই ভবনের ছয়তলার ছাদের প্রায় ৩০ ফুট লম্বা রেলিং ভেঙে রাস্তায় পড়ে যায়। তখন ওই ভবনের মেসে রান্নার কাজে নিয়োজিত পারুল বেগম ইটের নিচে চাপা পড়েন। তার মাথা দিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, ওই এলাকায় সারাদিন যানজট থাকে এবং প্রচুর জনসমাগম হয়। ঘটনার সময় রাস্তা ফাঁকা থাকায় অনেক প্রাণ রক্ষা পেয়েছে।

বগুড়া ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুল হালিম জানান, মাহমুদ হাসান পিন্টু নামে এক ব্যবসায়ীর মালিকানাধীন ওই ছয়তলা ভবনের ছাদের ওপর ইট দিয়ে রেলিং দেওয়া হয়। ছাদের উত্তর পাশে ইট দিয়ে ফাঁকা ফাঁকা করে সরু রড দেওয়া ছিল। যেগুলো রেলিং ধরে রাখার ক্ষমতা ছিল না।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা আরও জানান, ভবনটির ছাদের ওপর ভেঙে যাওয়া রেলিংয়ের অবশিষ্ট অংশও যে কোনো সময় ধসে পড়তে পারে। তাই সেটি অপসারণ করা জরুরি।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top
error: Content is protected !!