যশোরে ৩৫ দিনে ৮ এইডস্ রোগী শনাক্ত

jessore-hospital.webp

প্রতিদিন ডেস্ক
যশোরে এইচআইভি ভাইরাসে আক্রান্ত এইডস্ রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ২০২২ সালে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে মোট ১৭ জন এইচআইভি পজেটিভ রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে চলতি সেপ্টেম্বর মাসে ৪ জন এবং আগস্ট মাসে চার জন রোগী শনাক্ত হন।

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের এইচআইভি-এইডস পরীক্ষা কেন্দ্রে (এইচটিসি সেন্টার) পরীক্ষার মাধ্যমে এই রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। সব মিলিয়ে যশোর জেলায় এখন ২৬৯ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সংশ্লিষ্টদের মতে, গত ২০ বছরের ইতিহাসে এ জেলায় এত অল্প সময়ের ব্যবধানে এত সংখ্যক এইডস্ রোগী শনাক্ত হয়নি। এ পরিস্থিতিকে সতর্ক হওয়ার বার্তা বলে মনে করেছেন তারা।

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক বছর ধরে এইচআইভি/এইডস বিষয়ে সচেতনতা ও পরীক্ষার হার বাড়ছে। এছাড়া গর্ভবতী মা, চাকরি প্রার্থী, তৃতীয় লিঙ্গ, সংরক্ষিত এলাকার বাসিন্দা ও বিদেশগামীদের এইচআইভি পরীক্ষা করা হচ্ছে। যশোর হাসপাতালে ২০২০ সালে এইচআইভি পরীক্ষার জন্য এইচটিসি সেন্টার স্থাপন করা হয়।

২০২০ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে চলতি ২০২২ সালের ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যশোর জেলায় মোট ৩ হাজার ১৭ জনের রক্ত পরীক্ষা করে ১৭ জনের শরীরে এইচআইভি শনাক্ত হয়েছে। এই মধ্যে চলতি বছরে ১০ জন শনাক্ত হন। যার ৮ জনই আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে। এর মধ্যে ৩ জন পুরুষ, ৩ জন নারী ও ২ জন শিশু।

সূত্র মতে, চলতি বছরে গত পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ জনের এইডস পরীক্ষা করা হয়। এর ভেতর চার জনের শরীরে এইডসের জীবাণু শনাক্ত হয় এবং আগস্ট মাসেও ১৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে চার জনের শরীরে এইচআইভি ভাইরাসেরর অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এখন পর্যন্ত গোটা জেলায় এইডস্ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ জন।

হাসপাতালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী চলতি বছরের গত ৬ সেপ্টেম্বর ৩০ জনের রক্ত পরীক্ষা করে তিনজনের শরীরে এইডস শনাক্ত হয় এবং ৪ সেপ্টেম্বর একজনের শরীরে এইডস্ শনাক্ত হয়। এর আগে গত আগস্ট মাস জুড়ে ১৩২ জনের রক্ত পরীক্ষা করা হয়। এর ভেতরও চার জনের শরীরে এইচআইভির জীবাণু পাওয়া গিয়েছিল। পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ৪ আগস্ট একজন, ৭ আগস্ট একজন, ১৬ আগস্ট একজন ও ২৯ আগস্ট একজনের শরীরে এইচআইভি শনাক্ত হয়।

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আক্তারুজ্জামান বলেন, এইডস আক্রান্তের সংখ্যার এই বৃদ্ধি মানুষের জন্য একটি সতর্কবার্তা। আক্রান্তদের অনেকেই ভারত এবং বাংলাদেশে বসবাস করেন। চলতি বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে আট জনের শরীরে এইডস্ শনাক্ত হয়েছে যেটি বিশেষজ্ঞদের কাছে অস্বাভাবিক এবং সতর্কবার্তা বলে মনে হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে সরকারিভাবে চিকিৎসার জন্যে থেরাপি সেন্টার নেই। খুলনা মেডিকেল কলেজে এ সেন্টার আছে সেখানে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

যশোর সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস বলেন, গত ৩৫ দিনে যশোরের ৮ জনের শরীরে এইডস শনাক্ত হয়েছে। তারা সবাই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এরইমধ্যে আমরা জরুরি ভিত্তিতে এইডস রোগীদের চিকিৎসা কেন্দ্রের জন্য আবেদন করেছি। খুব দ্রুত আমরা যশোরে এইডস্ রোগীদের চিকিৎসা করবো।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top
error: Content is protected !!