শৈলকুপায়‘নৌকায় ভোট দেননি’ সন্দেহে যুবককে হত্যার অভিযোগ

swapan-samakal-61ebad94cbeed.jpg

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

নৌকা মার্কায় ‘ভোট দেননি’ এমন সন্দেহে ঝিনাইদহের শৈলকুপার ৬ নম্বর সারুটিয়া ইউনিয়নে স্বপন মন্ডল (৩০) নামের একজনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার রাতে সারুটিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।নিহত স্বপন সারুটিয়া গ্রামের দবিবর রহমানের ছেলে।এ নিয়ে ইউনিয়নটিতে ২২ দিনে ৫টি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটল।স্বপনের পরিবারের অভিযোগ, নৌকা মার্কায় ভোট না দেওয়ার অবিশ্বাস থেকে তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।পরিবার সূত্রে জানা যায়, স্বপন কয়েক বছর সিঙ্গাপুরে প্রবাসী জীবন কাটানোর পর দুই বছর আগে বাড়িতে এসে ইলেক্ট্রিকের শুরু করে।

নিহত স্বপনের চাচাত ভাই আশা হোসেন বলেন, দুই বছর আগে স্বপন সিঙ্গাপুর থেকে বাড়িতে ফেরেন। তিনি এলাকায় বাসা বাড়িতে বিদ্যুৎ ও পানির লাইন সংযোগের কাজ করতেন। ইউপি ভোটের পর থেকে তিনি আত্মগোপনে ছিলেন। ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের বিজয় হলেও হেরে যায় সারুটিয়া কেন্দ্রে। স্বপন বিএনপি কর্মী হওয়ায় নৌকার সমর্থকরা তার ভোট নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে হুমকি দিতে থাকে। এ কারণে তিনি আত্মগোপনে চলে যান। শুক্রবার তিনি বাড়ি ফিরলে রাত সাড়ে ৯টার দিকে একই গ্রামের নজির মন্ডলের ছেলে মাসুদসহ কয়েকজন তাকে ডেকে নিয়ে যায়। এর পর বাড়ির পাশে খালের পাশ থেকে হাতুড়ির আঘাতে মাথা থেতলানো অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে বলেন। সেখানে রাত ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

শৈলকুপা থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক আমিরুজ্জামান বলেন, ৬ নম্বর সারুটিয়া ইউনিয়নে স্বপন নামের এক ব্যক্তিকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top
error: Content is protected !!